Home > বিশেষ সংবাদ > সেই শিক্ষক হত্যার দায় স্বীকার করেছে জিতু

সেই শিক্ষক হত্যার দায় স্বীকার করেছে জিতু

সাভারের আশুলিয়ায় হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক হত্যাকান্ডের ঘটনার প্রধান আসামি আশরাফুল ইসলাম জিতু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। বুধবার (৬ জুলাই) দুপুরে কোর্ট পুলিশের ইন্সপেক্টর মতিয়ার রহমান মিঞা এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ঢাকা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক রাজিব হাসান আসামির জবানবন্দি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এমদাদুল হক বলেন, গত ২৫ জুন আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকায় হাজী ইউনুছ আলী কলেজের মাঠে শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে জখম করে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম জিতু। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলো জিতু ও তার বাবা উজ্জ্বল হোসেন। বুধবার (৬ জুলাই) ভোর রাতে কুষ্টিয়ার কুমারখালি থেকে জিতুর বাবা উজ্জ্বল হোসেনকে আটক করা হয়। পরে হত্যা মামলায় তাকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠালে আদালত তার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে গতকাল মঙ্গলবার সে আদালতে জবানবন্দি দেন।

গত বুধবার (৬ জুলাই) রাতেই গাজীপুর থেকে জিতুকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে আদালতে পাঠানো হলে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। এরপর আজ বুধবার রিমান্ড শেষে আসামি জিতুকে আদালতে পাঠানো হয়। পরে বিজ্ঞ আদালতে শিক্ষক উৎপল কুমারকে হত্যার দ্বায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় জিতু। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ জুন কলেজ প্রাঙ্গণে মেয়েদের ক্রিকেট খেলার সময় দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম জিতু রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। পরদিন সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। একই দিন নিহতের বড় ভাই অসীম কুমার সরকার বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।