Home > সারাদেশ > বাড়িতে স্ত্রী না আসায় শ্বশুরকে অপহরণ

বাড়িতে স্ত্রী না আসায় শ্বশুরকে অপহরণ

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় স্ত্রী বাড়িতে না আসায় মেয়ের স্বামী বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী শ্বশুরকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে ৪ ঘণ্টার মধ্যে অপহরণের শিকার শ্বশুরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) বিকেলে এ ঘটনায় রফিকুল ও তার বাবাসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে পীরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগীর ছেলে মশিউর রহমান। এর আগে সোমবার (১৩ জুন) রাতে উপজেলার খালাশপীর হাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় খবর পেয়ে ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে পুলিশের সহায়তা চান ভুক্তভোগীর পরিবার। পরে একই দিন রাতে অপহৃতকে উদ্ধারে অভিযান চালায় পুলিশ।

ভুক্তভোগী জয়নাল আবেদীন উপজেলার খালাশপীর হাট এলাকার বাসিন্দা। অভিযুক্ত ব্যক্তি হলেন, উপজেলার বড় আলমপুর ইউনিয়নের আকুবেরপাড়া গ্রামের সোবহান আলীর ছেলে রাকিবুল ইসলাম (২০)।

জানা গেছে, প্রায় ৪ মাস রাকিবুল ইসলামের সঙ্গে পাশ্ববর্তী ছোট রসুলপুর গ্রামের মসলা ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীনের মেয়ে তাসনিম বেগমের সঙ্গ পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলে আসছিল। এরই সূত্র ধরে দেড় মাস পূর্বে তাসনিম বেগম রাগ করে বাবার বাড়ি চলে আসে।

এদিকে রাকিবুল প্রায়ই মোবাইলের মাধ্যমে তাসনিমকে বাড়িতে আসতে বলেন। কিন্তু তাসনিম বেগম তার শ্বশুর-শ্বাশুড়ি নিতে না আসা পর্যন্ত বাবার বাড়ি ছেড়ে যাবে না বলে জানান। এতে রাকিবুল ক্ষিপ্ত হয়ে তাসনিমসহ তার বাবা জয়নাল আবেদীন ও ভাই মশিউর রহমানকে প্রায়ই মোবাইল ফোনে নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল।

ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি, সোমবার (১৩ জুন) সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাকিবুল পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার লোকজন নিয়ে খালাশপীর হাটে আসেন। এ সময় সেখানে হাটে মসলার দোকান থেকে জোরপূর্বক তার শ্বশুর জয়নাল আবেদীনকে তুলে অজ্ঞাতনামা স্থানে নিয়ে গিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করে। পরে অপহরণের ঘটনাটি জানতে পেরে জয়নালের পরিবার তাৎক্ষণিক ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে পুলিশকে বিষয়টি অবগত করেন। পরে একই দিন রাতেই পীরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাত সাড়ে ১১টায় স্থানীয় তেলিপাড়া লক্ষ্মীপুর এলাকা থেকে অপহৃত জয়নালকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন। ঘটনার প্রায় ৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার হওয়া জয়নালকে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ থানা পুলিশের পুলিশ উপপরিদর্শক (এসআই) অনন্ত বলেন, স্বামী-স্ত্রীর বনিবনা না হওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। এখনও কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।