Home > খেলাধুলা > সংখ্যায় সংখ্যায়: ৩০’র পর আরও ভয়ঙ্কর রোনালদো

সংখ্যায় সংখ্যায়: ৩০’র পর আরও ভয়ঙ্কর রোনালদো

বয়স কেবল একটি সংখ্যা। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে দেখুন। ৩৫ পেরিয়েও টগবগে তরুণ। বয়স ৩০ ছাড়িয়ে যাওয়ার পর ফুটবলারদের পারফরম্যান্সের গ্রাফ ক্রমাগত নিম্নমুখী হতে থাকে। কিন্তু পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের বেলায় যেন ঘটনাটা উল্টো! মুড়ি-মুড়কির মতো গোল করে যাচ্ছেন। রথী-মহারথীদের টপকে রেকর্ডের পর রেকর্ড নিজের করে নিচ্ছেন।

পরিসংখ্যান বলছে ৩০ বছরের পর নিজেকে আরও সেরা করেছেন সিআর সেভেন।

পাঁচ বছর আগে থেকে অর্থাৎ রোনালদোর ৩০ বছরের পরে তিনি পর্তুগিজ জাতীয় দলের হয়ে যে গোল করেছেন, তাতেও তিনি দেশটির সর্বকালের সেরা গোলদাতা হয়েছেন। এই সময় তার গোল হয়েছে ৪৯টি। যেখানে পেছনে ফেলেছিলেন স্বদেশি কিংবদন্তি পাউলেতা (৪৭), ইউসেবিও (৪১), লুইস ফিগো (৩২) ও নুনো গোমেসদের (২৯)।

৩০ বছরের আগে রোনালদো ১১৮ ম্যাচে ৫২টি গোল করেছেন। আর মূল ম্যাজিকটা দেখান ৩০’র পর। এসময় করেছেন ৪৭ ম্যাচে ৪৯ গোল। ৩০’র পর সব প্রতিযোগিতা মিলিয়েও জাদুকরি এই তারকা। করেছেন ২৭৬টি গোল!

দীর্ঘ ৯ বছরে রিয়াল মাদ্রিদে কাটানো রোনালদোর জন্য সেসময় প্রতিটি বছরে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে ৫০ গোল করা ছিল ডালভাত। এমনকি ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্টাসে পাড়ি দিয়েও ক্ষান্ত হননি। গত মৌসুমেই সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে করেছেন ৩৭টি গোল। তার পরফরম্যান্সের সুবাদেই টানা নবম সিরি’আ শিরোপা ঘরে তুলেছে তুরিনে বুড়িরা।

এদিকে পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী রোনালদো তার এই দুর্দান্ত ক্যারিয়ারে মোট পাঁচটি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জিতেছেন। এই পরিসংখ্যানেও চমক রয়েছে। ৩০’র পরেই তিনি জিতেছেন ৩টি ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের ট্রফি। আর প্রতিবারই রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি। সেবার তার প্রতিপক্ষ দলগুলো ছিল মিলানে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ, কার্ডিফে জুভেন্টাস ও কিয়েভে লিভারপুল।

অ্যাতলেটিকোর বিপক্ষে ট্রাইব্রেকারে উইনিং গোলটি করেছিলেন রোনালদো। জুভেন্টাসকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া ম্যাচে তিনি ছিলেন ভয়ঙ্কর। কিয়েভে গ্যারেথ বেলের গোলে জয় নিশ্চিত হলেও রোনালদোই সেবার রিয়ালকে ফাইনালে নিয়ে গিয়েছিলেন। তার মানে তাকে ছাড়া এ জয়গুলো ছিল বেশ কঠিন।

৩০’র পরে রোনালদোর দলীয় ও ব্যক্তিগত সাফল্যও ছিল দেখার মতো। পর্তুগালের হয়ে জিতেছেন ২০১৬ ইউরো, ২০১৯ নেশনস লিগ ট্রফি (প্রথম আসর), দুটি ব্যালন ডি’অর, দুটি ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ, দুটি সিরি’আ শিরোপা, একটি ইতালিয়ান সুপার কাপ, একটি স্প্যানিশ সুপার কাপ। এছাড়া জিতেছেন ব্যক্তিগত আরও অনেক ট্রফি।

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*