Home > অন্যান্য > প্রিমিয়াম, প্রফেশনাল, মৌসুমি কসাইয়ের সেবা মিলছে অনলাইনে

প্রিমিয়াম, প্রফেশনাল, মৌসুমি কসাইয়ের সেবা মিলছে অনলাইনে

আসন্ন কোরবানির ঈদ উপলক্ষে কসাইও পাওয়া যাচ্ছে অনলাইনে। আছে প্রিমিয়াম, প্রফেশনাল, মৌসুমি কসাইয়ের প্রকারভেদ। কোন সময় পশু জবাই হবে তার ওপর নির্ভর করছে হাজারে কত টাকা লাগছে। এসব কসাই পেতে আগেই বুকিং দিতে হচ্ছে।

ঈদের দিন কসাই নিয়ে দুশ্চিন্তা এড়াতে অনেকেই অনলাইনে বুকিংও দিচ্ছেন। বুকিংপ্রতি দুই হাজার টাকা অগ্রিম দিতে হচ্ছে গ্রাহকদের।

দিনদিন এই সেবা জনপ্রিয় হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা। এ জন্য সার্ভিস দেয়ার প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও বাড়ছে।

বাসা-বাড়িতে কসাই যাওয়া ছাড়াও অন্যত্র জবাই করার ব্যবস্থাও আছে। অ্যাপার্টমেন্ট বা ভাড়া বাসায় স্থান স্বল্পতাসহ বিভিন্ন কারণে কোরবানি দিতে অসুবিধা হয় অনেকের। তাদের জন্যও মাংস কেটে প্যাকেট করে, বাসায় পৌঁছে দেবে অনেক প্রতিষ্ঠান।

বেশ কয়েক বছর ধরে রাজধানীবাসীদের কসাইয়ের সেবা দিয়ে আসছে বুচার শপ (Butcher Shop) নামে একটি অনলাইন সার্ভিস। প্রতিষ্ঠানটি কসাই সরবরাহ করা ছাড়াও নিজ ফার্মের গরু বিক্রি করছে।

এই অনলাইনের মাধ্যমে কসাইদের সেবা নিতে হলে ঈদের দিনের জন্য গরুর দাম অনুযায়ী হাজারে ১৭০- ২০০ টাকা দিতে হবে। সকালে সেবা নিলে ২০০ টাকার মতো পড়বে। দুপুর বা বিকেলে ১৭০ টাকা। আর ঈদের পরের দিন হাজারে ১০০-১৩০ টাকায় কসাই পাওয়া যাবে।

প্রতিষ্ঠানটির মালিক মো. সুলাইমান হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘চার বছর ধরে আমি বুচার শপ চালাই। আমার কাছে প্রায় ১৫০ জন দক্ষ কসাই আছেন। আমরা ঈদের দিন ও ঈদের পরের দিনের জন্য কসাই সাপ্লাই দিচ্ছি। ইশান ক্যাটেল ফার্ম নামে ফরিদপুরে আমার একটি ফার্মও আছে। অনলাইনের মাধ্যমে সেখানকার গরু বিক্রি করছি। সাথে সাথে কসাই সার্ভিসও দিচ্ছি। আমার ফার্মে বিক্রি হওয়া অধিকাংশ গরুই সরকারি বিধি মেনে জবাইয়ের পর প্রসেসিং করে, ক্রেতাদের বাসায় বাসায় পৌঁছে দেয়া হবে। নিউ ইস্কাটনে আমার জায়গা আছে। বৃহস্পতিবার সেখানে গরুগুলো আনা হবে।’

০১৭১২৮২৪১১০, ০১৬১৫১০০৫৪৪ নম্বরে যোগাযোগ করে তাদের কাছ থেকে সেবা নেয়া যাবে।

মোহাম্মদী ডটকম নামে অনলাইন সার্ভিস তিন ধরনের কসাইয়ের কথা জানিয়েছে। তাদের কাছে প্রিমিয়াম, প্রফেশনাল ও মৌসুমি বা সিজনাল কসাই রয়েছে। প্রিমিয়াম কসাই হাজারে ১৮০ টাকা, প্রফেশনাল হাজারে ১৫০ আর সিজনাল হাজারে ১২০ টাকাতে পাওয়া যাচ্ছে। আর বুকিং করতে হলে ২০০০ টাকা অগ্রিম দিতে হবে।

মোহাম্মদী ডটকমের মালিক আলী সাব্বির জাগো নিউজকে বলেন, ‘করোনাকাল হলেও আমরা খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি। কিন্তু সব অর্ডার এখন নিতে পারছি না। সচরাচর কসাই পাওয়া যায় না। আগে যা পেয়েছি তা বুকিং দিয়ে দিয়েছি। এখন যদি লাখ টাকার ওপরে গরু হলে অর্ডার নিচ্ছি। ছোট গরু হলে নিচ্ছি না। তবে রেসপন্স খুবই ভালো।’

০১৭৯৫০৮৮৬৩৩, ০১৭৭৫৬৬৫১৮৩ এই নম্বরগুলোতে তাদের সেবা পাওয়া যাবে।

টেস্টিফাইড (Tastyfied) নামে কসাই সার্ভিসের মালিক মো. কায়েস বলেন, ‘আমরা সব ধরনের সার্ভিস দিচ্ছি। আমাদের কাছে গরু ছোট-বড় কোনো ব্যাপার না। এ পর্যন্ত আমরা মোটামুটি ২০ থেকে ২২টি অর্ডার পেয়েছি।’’

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মুক্ত পরিবেশে আমাদের নিজস্ব জায়গায় দক্ষ কসাই দ্বারা ১০০ শতাংশ হালাল উপায়ে পশু কোরবানি দিচ্ছি। আমাদের কসাই হবে কোভিড-১৯ টেস্টেড এবং তারা সর্বদা মাস্ক ও গ্লোভস পরিহিত থাকবেন। সময়মতো সুরক্ষিত ব্যাগে বাসায় মাংস পৌঁছে দেব আমরা।’

০১৮৪৯৫২৯৪২৯ এই নম্বরে অথবা মেসেজ দিয়ে তাদের সার্ভিস নেয়া যাবে।

কোরবানি (Qurbani) নামে আরেকটি অনলাইন প্রতিষ্ঠান কসাই সার্ভিস ও সেবা দিচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, বৈশ্বিক মহামারি করোনার সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করবেন তারা। তবে তাদের ঈদের দিনের বুকিং শেষ হয়ে গেছে। যারা ঈদের দিন বিকেল থেকে ঈদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনের জন্য কসাই খুঁজছেন, তাদের শুধু যোগাযোগ করার জন্য বলা হয়েছে।

এ ছাড়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত স্থানে (ডিজিটাল হাটে) শরিয়া মোতাবেক পশু কোরবানি ও অভিজ্ঞ কসাই দ্বারা মাংস প্রসেসিং করে হোম ডেলিভারির সেবা বুকিং দিচ্ছে www.digitalhaat.net। ০৯৬১৪১০২০৩০ নম্বরে ফোন দিলে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যাবে বলে জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া ডিজিটাল হাট: ক্রিয়েট অ্যাকাউন্ট (Digital Haat: Create Account) লিংকে তাদের বুকিং দেয়া যাবে।

অনলাইনে কসাই বুকিং দেয়া রামপুরার জগলুল হোসেন বলেন, ‘ঝামেলা এড়াতে গত কয়েক বছর ধরেই অনলাইনের মাধ্যমে কসাই নিচ্ছি। এবারও বুকিং দিয়েছি। ভালোই সার্ভিস পাচ্ছি।’

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*